গরমে শিশুর অসুখ হলে কি করবেন জেনে রাখুন-সুস্থ থাকুন (Baby fever)

গরমে শিশুর অসুখ হলে যা করবেন
হঠাৎ করে বেড়ে যাওয়া চৈত্রের গরম সব বয়সীদের ভোগালেও শিশুস্বাস্থ্যে পড়েছে মারাত্মক প্রভাব। এ সময় শিশুরা নানা রকম অসুখে ভোগেন। বিশেষ করে ঠান্ডা-জ্বর। চিকিৎসকরা ঠান্ডা-জ্বরে অবহেলা না করে বছরের এ সময়টাতে বিশেষ যত্নশীল হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। ঋতুজনিত সমস্যার কারণে গরমে শিশুদের জ্বর হয়। তাই শিশুর প্রয়োজন বিশেষ যত্ন। কীভাবে নিবেন শিশুর যত্ন জেনে নিন বিশেষজ্ঞের কাছ থেকে।
অতিরিক্ত ঘামের ফলে শিশুদের ঠাণ্ডা, সর্দি-কাশি, র‌্যাশ বা ঘা হতে পারে। এ ছাড়া পেট খারাপ, কলেরা, আমাশয়, ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া হওয়ারও আশঙ্কা থাকে। গরমে শিশুর জ্বর ও নানা সমস্যায় প্রতিরোধ নিয়ে পরামর্শ দিচ্ছেন শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. মনজুর হোসেন।

জ্বর
জ্বর কোনো অসুখ নয় এটি রোগের উপসর্গ মাত্র। অতিরিক্ত গরমের কারণে শিশুদের ভাইরাস জ্বরের প্রবণতা বেড়ে যায়। বাচ্চাদের ক্ষেত্রে শরীরের তাপমাত্রা খুব জলদি বাড়ে। তাই ১০১-১০৩ জ্বর হলে তেমন ঘাবড়ে যাওয়ার কিছু নেই।
সংক্রমণ, ঠাণ্ডাসহ নানা কারণে শিশুর জ্বর হয়। তাই ওই রোগের চিকিৎসার মধ্য দিয়েই জ্বরের চিকিৎসা করা সম্ভব। শুধু খেয়াল করবেন যেন তাপমাত্রা অতিরিক্ত না বাড়ে। চিকিৎসার পরামর্শ নিয়ে প্রয়োজনে মাথা ও গা মুছে দিতে পারেন।

পেট খারাপ
গরমে পেট খারাপ হওয়া শিশুদের সাধারণ সমস্যা। এ সময় খাবার স্যালাইন খাওয়াতে হবে। একই সঙ্গে তাকে তরল খাবারও দিতে হবে। প্রস্রাবের পরিমাণ স্বাভাবিক আছে কিনা তাও খেয়াল করতে হবে। ছোট শিশুদের মায়ের দুধ দিতে হবে ঘন ঘন। তিন দিনে অবস্থার উন্নতি না হলে অবশ্যই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে হবে।

র‍্যাশ
ঘাম বেশি হওয়ার ফলে শিশুদের র‍্যাশ বা ঘামাচি দেখা দেয়। এ ধরনের সমস্যায় শিশুর গা পরিষ্কার রাখতে হবে। পরিষ্কার জামা পরাতে হবে। শিশু যেন ঘেমে না যায় সে জন্য পাতলা সুতির কাপড় পরাতে হবে। গা শুষ্ক রাখতে বেবি পাউডার লাগাতে পারেন। খেয়াল রাখতে হবে যেন চামড়ার ভাঁজে ঘাম না থাকে। তাহলে ঘা হওয়ার আশঙ্কা থাকে। আবার র‌্যাশের জন্য যদি ঘা হয় তাহলে অবশ্যই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।

নিউমোনিয়া
সর্দি কাশি, ঘন ঘন শ্বাস নেওয়া, কাপুনিসহ তীব্র জ্বর, বমি নিউমোনিয়ার লক্ষণ। তাই এসব সমস্যা তিন দিনের বেশি স্থায়ী হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। মনে রাখতে হবে, নিউমোনিয়া কখনো সারাসরি দেখা দেয় না। অন্যান্য রোগ অতিরিক্ত বেড়ে গিয়ে নিউমোনিয়ায় রূপ নেয়। এ জন্য শিশুর প্রতিটি লক্ষণ খেয়াল করুন।

গরমে শিশুর সুস্থ্যতার জন্য করণীয়
মনে রাখতে হবে গরমে বড়দের চেয়ে শিশুদের বেশি অসুখ হয়। তাই শিশুর বিশেষ যত্ন নিতে হবে। এ জন্য যা করতে পারেন-
১. শিশুকে নিয়মিত গোসল করাতে হবে এবং ধুলোবালি থেকে দূরে রাখতে হবে।
২. পানি ফুটিয়ে খাওয়াতে হবে।
৩. শিশুর শরীর শুকনা রাখতে হবে।
৪. যতটা সম্ভব নরম খাবার খাওয়াতে হবে।
৫. ত্বক পরিষ্কার রাখতে হবে।
৬. ঘন ঘন পানি খাওয়াতে হবে।
৭. সদ্যোজাত শিশুদের ঠাণ্ডা থেকে বাঁচাতে ঢেকে রাখুন। তবে ঘেমে যেন না যায় তাও খেয়াল রাখতে হবে।

সূত্র: বাংলা ইনসাইডার

Media PlantAuthor posts

Avatar for Media Plant

Shopping and Entertainment Media Plant organized.

Comments are disabled.